স্বাস্থ্যসৌন্দর্য

শীতে রুক্ষ চুলকে বিদায় জানাবেন যেভাবে

হ্যালোডেস্ক

শ্যাম্পু-কন্ডিশনারেও শীতের রুক্ষতাকে যেন বাগে আনা মুশকিল। মাথার শুষ্ক ত্বকে যেমন বাড়ে খুশকির আধিক্য, তেমনি আবহাওয়ার কারণে চুলের নিজস্ব লাবণ্য নষ্ট হয়। শীতে চুলের মসৃণতা ধরে রাখতে ও রুক্ষতা কমাতে হেয়ার মিস্টের উপর ভরসা করতে পারেন। তবে বাজারচলতি মিস্টে রাসায়নিকের আধিক্য থাকে। সহজলভ্য কিছু উপাদানে বাড়িতেই তৈরি করে নিতে পারেন হেয়ার মিস্ট। চুলের রুক্ষতা কমাতে এই ধরনের মিস্ট যেমন কার্যকর, তেমনি যেকোনও অনুষ্ঠানে চুলে তড়িঘড়ি উজ্জ্বলতা আনতেও এর জুড়ি নেই। একবার তৈরি করে একটানা চার- থেকে পাঁচ দিন এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

গ্রিন টি মিস্ট
এই মিস্টের প্রধান উপকরণ চা পাতা। চায়ের লিকার এমনিতেই চুলের সেরা কন্ডিশনার। তাই চুলের রুক্ষতাকে জব্দ করার পাশাপাশি এই মিস্ট চুলকে নরমও করে। আধা কাপ গ্রিন টি, ১ কাপ পানি, দুই ফোঁটা পিপারমিন্ট অয়েল, ১ চা চামচ টি ট্রি অয়েল এবং ১ চা চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। একটি পুরনো স্প্রে বোতলে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন এই মিস্ট। টি ট্রি অয়েল অ্যান্টিফাঙ্গাল হওয়ায় খুশকির সমস্যা দূর হবে। নারকেল তেল চুলে পুষ্টিগুণের জোগান দেবে। প্রতিদিন গোসল শেষে এই মিস্ট চুলে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ভালো করে চুল ধুয়ে নিন। পুরো শীতকাল জুড়ে চুলের লাবণ্য ও আর্দ্রতা বজায় থাকবে।

অ্যালোভেরা মিস্ট
ঘন ঘন চুলে আর্দ্রতা কমে গেলে ভরসা রাখুন এই হেয়ার মিস্টে। আধা কাপ অ্যালোভেরার রস, ১ কাপ পানি, ১ চা চামচ জোজোবা অয়েল ও ১ চা চামচ নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি বোতলে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। প্রতিদিন গোসলের পর ভেজা চুলে মিস্ট লাগিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন। ধুয়ে ফেলুন পানি দিয়ে। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন ব্যবহার করুন।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

ফেসবুক পেজ

আর্কাইভ

ক্যালেন্ডার

জানুয়ারি ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« ডিসেম্বর    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১