গল্প

নিজেকে হারিয়ে পাওয়া (নিবন্ধ)

সাময়িকী: শুক্র ও শনিবার

-সেলিনা জামান

“অদ্ভুত আঁধার এক এসেছে পৃথিবীতে আজ” জীবনানন্দের এই কবিতার পংক্তিটি এক সময় কোন একজন মানুষের জীবনে চরম সত্য হয়ে দাঁড়ায় যখন সে নিজেকে হারিয়ে ফেলে। এ পৃথিবীর রুপ রস গন্ধ কোন কিছুই আর আকর্ষণ করেনা তাকে। কোন আলোয় নিজেকে আলোকিত করবার প্রয়োজন বা নিজেকে আলোময় জীবনে নিয়ে যাবার কোন আকাংখা বোধ করেনা সে। দুর্দান্ত সাহসী মানুষ এক সময় প্রচন্ড ভীত হয়ে পড়ে। নিজেকে গুটিয়ে নেয় শামুকের মতো, সমাজ থেকে, পরিবার থেকে, এমনকি নিজের থেকেও। অতঃপর সে ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে পড়ে। তার ভেতরের বহুমুখী প্রতিভা ধীরে ধীরে লুপ্ত হয়ে যায়, লুপ্ত হতে থাকে তার চেতনা বাহ্যিক, মানসিক। বিনষ্ট হয় তার সুস্থ জীবন যাপন। পরিবারের কাছে, সমাজের কাছে সে তখন অনাকাংখিত একজন মানুষ হয়ে দাঁড়ায়।
আমাদের সমাজ বা পরিবারকে যে কিছু দিতে পারেনা সমাজ বা পরিবার তাকে মূল্য দেয়না।এরকম একজন মানুষের ক্ষেত্রে সমাজ বা পরিবার তাকে খোঁটা দিতে থাকে বিভিন্নভাবে। বিভিন্ন রকম কটুক্তি শুনতে শুনতে এক সময় সে সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এই উদ্ভুত পরিস্থিতি ও পরিবেশের জন্য সেই দায়ী এই বোধ তাকে আক্রান্ত করে এবং অনেক সময় অপরাধ না করেও নিজেকে অপরাধী ভেবে মানসিক অস্থিরতায় ভোগে এবং এই মানসিক অস্থিরতা এক সময় চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে তাকে করে তোলে ভারসাম্যহীন। এই অবস্থা অনেকের ক্ষেত্রেই হতে পারে।
যে হারিয়েছে নিজেকে, এই হারানোর জন্য দায়ী পরিবার, সমাজ,রাষ্ট্র। এদেরকে ফেরানোর দায়ীত্বও তাই সকলের। কারণ মানুষের জীবন সব সময়ই জীবনমুখী। তাই এরা ফিরে পেতে চায় নিজেকে। কেননা এইসব আত্মহারা প্রত্যেকের মধ্য একটা আমি আছে যে বাঁচতে চায়, জীবনে সমৃদ্ধি পেতে চায়,বিকশিত হতে চায় ভালবেসে।আর তার বাঁচার জন্য প্রয়োজন সুন্দর একটি পৃথিবী। কিন্তু এই পৃথিবী তথা রাষ্ট্র,সমাজ,পরিবার যখন তার এই অধিকারকে হরণ করে, হনন করে তার প্রত্যাশাকে তখন সে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। হারিয়ে ফেলে নিজেকে।
ব্যক্তি নিয়ে সমাজ। ব্যাক্তি সমাজেরই অংশ। সমাজের প্রভাব যেমন ব্যক্তির ওপর পড়ে তেমনি ব্যক্তির দ্বারাও সমাজ প্রভাবিত হয়। তাই, কতিপয় ব্যক্তির দ্বারা কলুষিত সমাজকে কলুষতা মুক্ত করবার উদ্যোগ ব্যক্তিকেই নিতে হবে।এই ব্যক্তি কে? এই ব্যক্তি আমি,আমরা প্রত্যেকে। আমরা যদি প্রত্যেকে প্রত্যেকের পরিবারকে সৎ পথে সুস্থ, সুন্দরভাবে গড়ে তুলবার চেষ্টা করি এবং নিজেরা ভাল হই, ভাল হয়ে থাকবার চেষ্টা করি, নিজেদের ভুল ত্রুটিগুলো সংশোধন করে নিজেকে ফিরিয়ে আনতে পারি তাহলে সুস্থ সমাজ উপহার দেয়া মোটেই কঠিন ব্যাপার নয়।
প্রত্যেকের মধ্য যে আমি এই আমিত্ব কে জাগিয়ে তুলতে পারলেই যে হারিয়েছে নিজেকে, সে ফিরে পাবে নিজেকে। তবে, নিজেকে ফিরে পেতে হলে নিজেকেই হতে হবে আত্মপ্রত্যয়ী, নিষ্ঠাবান, সৎ, দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। সুদৃঢ় মনোবলে বলীয়ান হলে যে কোন নাজুক পরিস্থিতিতেও মানুষ নিজেকে নিয়ন্ত্রিত করে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে সত্য ও সুন্দররুপে। তবে মন্দ হওয়া অনেক সহজ কিন্তু ভাল হওয়া ও ভাল হয়ে থাকা অনেক কঠিন। তেমনি নিজেকে হারানো অনেক সহজ কিন্তু ফিরে পাওয়া সে বড় জটিল ব্যাপার।
তাই,সারাক্ষন মনে থাক এই ভয়
নিজেকে হারাতে যেন না হয়।।

Add Comment

Click here to post a comment

ফেসবুক পেজ

আর্কাইভ

ক্যালেন্ডার

June 2024
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930