গল্প

পরী

সাময়িকী : শুক্র ও শনিবার

-রুমানা আখতার

প্রেম নেবে গো প্রেম !! হরেক রঙের , নানান স্বাদের , টক ঝাল মিষ্টি প্রেম !! বলে সাথের মেয়েটির গায়ে হেসে গড়িয়ে পড়ল বলিয়ে মেয়েটা , সাথের মেয়েটাও হাসছে । ওদের হাসি দেখে শহিদও মৃদু হাসল ।

নাহ্ , আমার প্রেম চাইনা গো । আমার একজন বন্ধু চাই , সত্যিকার বন্ধু ! একটা দীর্ঘশ্বাসের সাথে বল্ল শহিদ । তার প্রতিটা শব্দে কেমন যেন হাহাকার মাখা ! ঠাট্টাকারীনির মনটা অনেকদিন পরে কেমন করে উঠল ! সাথে সাথেই মাথা ঝাঁকিয়ে আজগুবি ভাবনাগুলোকে তাড়ানোর প্রয়াশ পেল সে ।

নাম কি আপনার ? শহিদের প্রশ্নটা তাকে একটু কাঁপিয়ে দিল কি ! তারপর চট করেই নিজের পেশাগত দক্ষতার বলে সামলে নিয়ে হাসল । কটাক্ষ করে বল্ল , আমি চোরকাঁটা গো ! কাপড়ে বিঁধলে আর ছাড়ানো মুশকিল ! বলে আবার হেসে গড়িয়ে পড়ল পাশেরজনের ওপর ।

আমি আপনার সত্যি নামটা জানতে চাইছি । শহিদ যেন একটু অসহিষ্ণু হয় !

সত্যি নাম !! সেটা আবার কি গো রসিক ! এ ব্যবসার মজাই তো এটা ! কেউ নাম নিয়া মাথা ঘামায় না । আলাপী , গোলাপী , একটা কিছু ডাকলেই হয় । ডাকো না গো , তোমার যা খুশি বলে ডাকো । বলে হাসে সে , তার হাসিতে যেন কেমন একটা কান্না লুকানো ! সে কান্না নিজের নাম হারানোর নয় বরং নিজেকে হারিয়ে ফেলার কান্না ! ফোঁস করে একটা দীর্ঘশ্বাস ফেলে শহিদ । ভাবে , ওর নিজের মন দুঃখ ভরাক্রান্ত তাই কি ও সবার মাঝে দু্ঃখ খুঁজে বেড়াচ্ছে !

পরীকে নিজের বিন্দু ধরে নিয়ে তার চারপাশে নিজের জগদ্বৃত্তটা বড় করে তুলছিল শহিদ পরম নিশ্চিন্তে । বৃত্তটা বড় হতে হতে কখন যে বিন্দুর থেকে এত দুরে সরে গেছে টেরই পায়নি ও । যখন পেল তখন ওর পরী উড়ে চলে গেছে নিদারুন অভিমানে । অনেক চেষ্টা করেও আর ফেরাতে পারেনি ও পরীকে ।

খুব নিশ্চিন্তে পরীকে নিজের সম্পত্তি ধরে নিয়েছিল শহিদ । ব্যাংকের লকারের মত দামী সাজ সজ্জায় সাজানো সংসারের ড্রয়ারে বন্দী করে রেখে ভেবেছিল ওখানেই বুঝি দিনের পর দিন পড়ে থাকবে সে ! পড়ে ছিলও পরী , বহুদিনের অবহেলার ধুলোয় ধুসরিত হয়ে অব্যবহৃত গয়নার মত নিজের সব চাকচিক্যের অহঙ্কার হারিয়ে একরকম মরে মরে বেঁচেছিল । শহিদ টেরও পায়নি কখন ওর সুরক্ষিত সম্পদে চোরের নজর পড়েছে ! আর কখনইবা সেই চোর খুব ধীরে সবার অলক্ষ্যে সোনার পরীকে দখল করে নিয়েছে ! যখন বুঝতে পেরেছে , তখন আর শহিদের কিছুই করার ছিল না । তবে পরী যদি ভাল থাকতো তবে হয়তো ওর মনে তেমন দুঃখ থাকতো না । কিন্তু বোকা মেয়েটা বুঝতেও পারেনি কার হাত ধরে সে নিজের নিরাপদ আশ্রয় ছেড়েছে ! শেষ পর্যন্ত নিজের সম্মান রক্ষায় আত্মাহুতি দিয়ে সত্যি সত্যি পরী আকাশে আবাস গড়তে উড়ে চলে গেছে!

পরীর মৃত্যু সংবাদ পাওয়ার পর থেকেই শহিদের পুরো পৃথিবী ওলট পালট হয়ে গেছে । বিশিষ্ট নামি দামী , ধনী ব্যবসায়ী শহিদুল হক আজ সমস্ত পার্থিব মোহ ত্যাগ করে ঘুরে বেড়াচ্ছে শহরের অলিতে গলিতে । মাঝে মাঝে কারো কারো চোখে ও পরীকে খোঁজার প্রয়াশ পায় । এই যেমন আজ , সস্তা কাজল মাখা এক নিশিকন্যার চোখে শহিদ পরীর চোখ দেখতে পায় ! তার হাসির ভাঁজে আড়াল করা দুঃখ আঁচলে পরীর ডানার হদিস খোঁজে ! অস্ফুটে ডাকে – ” পরী ! “

Add Comment

Click here to post a comment

ফেসবুক পেজ

আর্কাইভ

ক্যালেন্ডার

April 2024
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930