ঋতুর সাজ

ভাদ্রের গরমের আরাম টি-শার্টে

মডেল: রেজাশাহ পাহলভী কৌশিক

ঋতুতে দুলছে বাংলার ভাদ্র!

হ্যালোডেস্ক

ঋতুতে এখন দোল খাচ্ছে ভাদ্র। ভাদ্রে কখনও বৃষ্টি আবার কখনও রোদ। এমন ঋতুতে গরমের প্রভাবটাও বেশি। এমন আবহাওয়ায় হালকা পোশাক পরাই ভালো। এই গরমে সকল বয়সের বিশেষ করে তরুণ-তরুণীদের পছন্দের পোশাক হলো টি-শার্ট। টি-শার্ট আরামদায়ক এবং সহজলভ্য পোশাক। যা যেকোনো পরিবেশে মানিয়ে যায়। ক্লাস, শপিং, খেলা, অফিস বন্ধুদের আড্ডায়, ঘুরতে গেলে, পার্টিতে অর্থাৎ ঘরে-বাইরে যেকোনো জায়গায় আপনি টি-শার্ট পরতে পারেন। পলো টি-শার্ট পার্টি বা কোনো অনুষ্ঠানেও পরা যায়।

রকমসকম
টি-শার্টে সুতি ও নিট ফেব্রিক্সের কাপড় ব্যবহার করা হয়। এ ছাড়া কটন, পলিস্টারসহ বিভিন্ন কাপড়ের টি-শার্টও পাওয়া যায়। টি-শার্ট ঘাড়ের অংশ থেকে দেহের উপরাংশ কবন্ধের বেশিরভাগ স্থান ঢেকে রাখে। ফলে টি-শার্ট গরমে সব থেকে গ্রহণযোগ্য। এখন কেমন টি-শার্ট পরবেন এটাই ভাবছেন তো। এমন তীব্র আবহাওয়াই ভারী কাপড়ের টি-শার্ট নয় একটু হালকা খোলামেলা টি-শার্ট পরলে ভালো হয়। সুতি কাপড়ের টি-শার্ট সব থেকে বেশি আরামদায়ক। টি-শার্টে এমন কাপড় বেছে নিন যা হালকা-পাতলা সেই সঙ্গে বাতাস চলাচলে উপযোগী। যেমন গোল গলা বা ভি গলা হলে ভালো হয়। কলারসহ টি-শার্ট বার্থডে পার্টি, গেট টুগেদার পার্টি এমন জায়গায় পরতে পারেন। তবে সব সময় ব্যবহারের জন্য খোলা গলার টি-শার্ট পরাই ভালো। এতে আপনি স্বস্তিবোধ করবেন। এছাড়া কোমরের নিচ পর্যন্ত নেমে আসা টি-শার্ট গরমে মেয়েদের জন্য আরামদায়ক। শিশুদের টি-শার্টের ফেব্রিকসও আরামদায়ক হতে হবে।’

বৈচিত্র্যময় নকশা
গরমে নির্দ্বিধায় কালো রঙের টি-শার্ট বাদ দেওয়া উচিত। এ প্রসঙ্গে ইজির ফ্যাশন ডিজাইনার তৌহিদ চৌধুরী বলেন, ‘এ সময় উজ্জ্বল ও শুভ্র রঙের টি-শার্ট বেছে নেওয়া ভালো। ফেব্রিক হালকা হলে সহজে বাতাস চলাচল করতে পারে। তাই ক্লান্তি আসে না। যে কারণে টি-শার্টে আমরা মূলত রং ও ফেব্রিককেই প্রাধান্য দিয়ে থাকি।’ সেক্ষেত্রে কালো বাদ দিয়ে হোয়াইট, ব্লু, ডার্ক ব্লু, রেড, ডার্ক রেড, গ্রিন, বটল গ্রিন, মেরুন, অফ-হোয়াইট, ইয়োলো, ফিরোজা, রোজ ইত্যাদি কালার সহজেই বেছে নিতে পারেন। এই সময়ের জনপ্রিয় আর ফ্যাশনেবল টি-শার্ট হলো একরঙা ও চেকের টি-শার্ট। এছাড়া প্রিয় ব্যক্তিত্ব, কবিতার লাইন, বিখ্যাত কোনো চলচ্চিত্রের ছবি, বিখ্যাত কোনো প্রচ্ছদ, সুন্দর কোনো দৃশ্য ও লোগো নকশার টি-শার্টও চলছে। এছাড়া গলার কাটিং, হাতা, বোতাম ও পকেটে এসেছে বৈচিত্র্য। ছেলেদের টি-শার্টে পকেট বেশি দেখা যায়। গরমে অবশ্যই টি-শার্টে হালকা রঙের হওয়া উচিত। হালকা নীল, সবুজ, লাল, পেস্ট, মেরুন, হালকা ফিরোজা, বাদামি, হলুদ, কমলা, ছাই, গোলাপি, সাদা এমন রং বেছে নিন। তবে ছেলেমেয়েদের রঙে কিছুটা পার্থক্য আছে। প্রিন্টেড ফেব্রিক ও লাইট চেক ছেলেমেয়ে উভয়ের জন্য উপযোগী।

টি-শার্টের নকশায় ট্রেন্ডকেই বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়। মজাদার সব মেসেজ আর প্রাঙ্ক কার্টুনের তৈরি টি-শার্টই এখন খুব চলছে। হ্যান্ড পেইন্টের টি-শার্টের চাহিদা প্রচুর। এ ছাড়া প্রকৃতি, দেশ, বিখ্যাত ব্যক্তির প্রতিকৃতি, উক্তিও পিছিয়ে নেই। টি-শার্টের কাপড়ে রয়েছে দারুণ ভিন্নতা। সুতির ফেব্রিকই বাজার কাঁপাচ্ছে। পাশাপাশি স্টেচিং নিট কাপড়ের টি-শার্টই আরামদায়ক। একরঙা ট্রেন্ডকে পেছনে ফেলে টি-শার্টে যোগ হয়েছে প্রিন্টেড ফিউশন। ডিজাইনেও রয়েছে বেশ বৈচিত্র্য। এসব টি-শার্টে হাফহাতার নিচের দিকে ও কলারে ভিন্ন কাপড়ের ব্যবহার চলছে।

গরমেই চাহিদা বেশি
অন্য যেকোনো সময়ের তুলনায় গরমে টি-শার্টের চাহিদা থাকে বেশি। নকশার বৈচিত্র্য আর নিট কাপড়ের কোমলতা এ দুইয়ে মিলে টি-শার্টের বাজার জমজমাট। ফ্যাশন হাউজের ডিজাইনাররা বলছেন, এখন ছেলেদের পাশাপাশি ‘টিন এবং কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়েরাই টি-শার্টের বেশিরভাগ ক্রেতা। মেয়েরা বেশি নকশার টি-শার্টই পছন্দ করে।’

কোথায় কী দামে পাবেন
বসুন্ধরা সিটি শপিং মল, নিউ মার্কেট, ফরচুন শপিং মল, কর্ণফুলী মার্কেট, মৌচাক মার্কেট, ইস্টার্ন প্লাজা, যমুনা ফিউচার পার্কসহ নিউ এলিফ্যান্ট রোডের বিভিন্ন দোকানে টি-শার্ট পাবেন। তবে শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে বিশেষ ডিজাইন, লোগো ও বাটিক প্রিন্টের টি-শার্টের রয়েছে বিশাল সংগ্রহ। টি-শার্টের দাম নির্ভর করবে এর রং, ফেব্রিক্স ও ডিজাইনের ওপর। ছেলে ও মেয়েদের টি-শার্টের কাট ও নকশায় পার্থক্য থাকলেও দাম প্রায় একই রকম। শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটের ফ্যাশন হাউস নিত্য উপহার, কৃষ্ণকলি, মেঘ, পৌষ, যোগী, নোঙর, সমীকরণ, বালুচর, ইজি, দেশাল, সুই-সুতা, কারখানাসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে টি-শার্ট পাবেন। এসব টি-শার্ট কেনা যাবে ২৫০ থেকে ৪৫০ টাকার মধ্যে। বাচ্চাদের টি-শার্টের দাম পড়বে ১৮০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে। এ ছাড়া ফ্যাশন হাউস লা-রিভ, ক্যাটস আই, মেনজক্লাব, প্লাস পয়েন্ট, ওয়েস্টিন, টেক্সমার্ট, জেন্টাল পার্ক, ইস্টওয়ে, ইনফিনিটিসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে টি-শার্টগুলো কেনা যাবে ৫০০ থেকে ৯০০ টাকার মধ্যে।

আরও কম দামে কিনতে চাইলে যেতে পারেন নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা কলেজের সামনে, নিউ মার্কেট এলাকায়, বায়তুল মোকাররম মার্কেটের সামনে, বঙ্গবাজার, গুলিস্তান মোড়ে, ফার্মগেট, মিরপুরসহ বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী অনেক দোকানে। সেখানে নানা রং ও নকশার টি-শার্ট পাবেন ১২০ থেকে ৩৫০ টাকার মধ্যে।

Add Comment

Click here to post a comment

ফেসবুক পেজ

আর্কাইভ

ক্যালেন্ডার

April 2024
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930